The Bloodsworth Tragedy
Science

The Bloodsworth Tragedy

May 3, 2017   |    9161


1984 সালে আমেরিকার ম্যারিল্যান্ডে 9 বছর বয়সী এক মেয়ের লাশ পাওয়া যায়। তাকে হত্যা করার আগে একাধিকবার ধর্ষণ করা হয়েছে বলে পোস্টমর্টেমে প্রমাণ পাওয়া যায়। মেয়েটিকে শেষ বারের মত একজন 6 ফুট লম্বা-শুকনা সাদা লোকের সাথে দেখা গিয়েছে বলে 5 জন সাক্ষী দেয়। সাক্ষীদের ভাষ্যমতে স্কেচ একে তা টেলিভিশনে প্রচার করা হয়। কয়েকদিনের মধ্যেই ধরা পড়ে ক্রিক নোবেল ব্লাডসওর্থ।

 

ধরা পরার পর থেকেই ব্লাডসওরথ বারবার নিজেকে নির্দোষ বলে দাবি করেন। আদালতে 5 সাক্ষীর 3 জনই তার বিরুদ্ধে সাক্ষ্য দেয়। ক্রাইমসিনের পাশে যে জুতার ছাপ পাওয়া গেছে তা ব্লাডসওরথের সাথে সম্পূর্ণ মিলে যায়। অত্যন্ত ন্যাক্কারজনক এই হত্যা মামলায় তাকে 1985 সালে মৃতুদন্ড দেয়া হয়। যদিও ব্লাডসওরথ বারবার দাবী করছিলেন যে সে নির্দেষ।

 

দুবছর পর এক বিচারক এই মামলা রিভিউ করে উপযুক্ত প্রমাণের অভাব থাকায় তার সাজা কমিয়ে দুটি যাবজ্জীবন কারাদন্ড দেয়। 1994 সালে জেলের ভিতর এক পত্রিকা পড়ে ব্লাডসওরথ জানতে পারেন ফরেনসিক ডিএনএ টেস্ট এর কথা। এটা যেকোন বিচারে শ্রেষ্ঠ আলামত হিসেবে বিবেচনা করা হয়। তাই, ব্লাডসওরথ তার বিচারকের কাছে ডিএনএ টেস্ট দাবী করেন। সেটা বিবেচনাও করা হয়।

 

1994 সালে সেই মেয়ের অন্তর্বাসে লেগে থাকা ধর্ষকের স্পার্ম  ডিএনএ মিলিয়ে দেখা হয় ব্লাডসওরথের সাথে। রেজাল্ট নেগেটিভ। সোজা প্রমাণ হয়: তিনি বিগত 9বছর ধরে বিনা দোষে জেল খেটে যাচ্ছেন যার মধ্যে প্রায় 2বছর তিনি ছিলেন মৃত্যুদন্ড প্রাপ্ত আসামী!

 

1994 সালে ব্লাডসওরথ মুক্তি পান। কিন্তু আসল খুনীর পরিচয় তখনো অজানা। 2003 সালে আমেরিকায় ক্রিমিনাল ডিএনএ ডাটাবেস বানানো হয়। সেই ডাটাবেস সার্চ করে দেখা যায় সেই সিমেন ডিএনএধারী ব্যক্তি ইতোমধ্যে হাজতেই আছেন। নিয়তির সবচেয়ে নির্মম পরিহাস হচ্ছে, আসল খুনী ভিন্ন একটি মামলায় সাজাপ্রাপ্ত হয়ে ব্লাডসওরথের ঠিক নিচের সেলে থাকতেন।

 

সব প্রমাণ হওয়ার পর ব্লাডসওরথকে মোটা অংকের ক্ষতিপূরণ দেয়া হয়। সেটা কাজে লাগিয়ে তিনি খুলে ফেললেন: দ্য ইনোসেন্স প্রজেক্ট নামক এক সংগঠন। সংগঠনের কাজ সাজাপ্রাপ্ত নির্দোষ ব্যক্তির সাহায্য করা। এই প্রজেক্টের অধীনে অনেকেই 27বছর জেলে থাকার পর মুক্তি পেয়েছে।

 

2015 সালে এই রোমঞ্চকর ঘটার উপর বানানো হয় থ্রিলার চলচ্চিত্র: Bloodsworth: An Innocent Man

 

ফরেনসিক ডিএনএ টেস্টের ইতিহাসে এটি একটি বিখ্যাত ঘটনা। এর দ্বারা বিচার ব্যবস্থার দুটি আদর্শ প্রকাশিত হয়:

 

1. An Arrested man is Innocent until proven otherwise.

2. We will let 10 criminals walk away with their charges rather than convicting an innocent man!



Contact

Hi there! Please leave a message and I will try my best to reply.

© 2024 Shamir Montazid. All rights reserved.
Made with love Battery Low Interactive.